নগদ ২ হাজার কোটি টাকা পাচ্ছে ব্যাংকিং খাতের বিনিয়োগকারীরা

0
82

নিজস্ব প্রতিবেদক: ২০২০ অর্থবছরের পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ব্যাংক খাত থেকে বিনিয়োগকারীরা নগদ ডিভিডেন্ড হিসেবে পাবে ২ হাজার ৩০৭ কোটি ১৯ লাখ ৫১ হাজার ৬৮২ টাকা। আর বোনাস ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে এক হাজার ১৩৫ কোটি ৮২ লাখ ৮৬ হাজার ৮৪ টাকার মূলধন বাড়ছে ব্যাংক খাতে। ব্যাংক খাতের কোম্পানিগুলোর মধ্যে ২৬টি ব্যাংক ৩১ ডিসেম্বর ২০২০ পর্যন্ত সমাপ্ত হিসাববছরে বিনিয়োগকারীদের জন্য ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে।

ব্যাংকগুলো হলো- এবি ব্যাংক, আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক, ব্যাংক এশিয়া, ব্র্যাক ব্যাংক, সিটি ব্যাংক, ঢাকা ব্যাংক, ডাচ-বাংলা ব্যাংক, ইস্টার্ন ব্যাংক, এক্সিম ব্যাংক, ফার্স্ট সিকিউরিটিজ ইসলামী ব্যাংক, আইএফআইসি ব্যাংক, ইসলামী ব্যাংক, যমুনা ব্যাংক, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, মিউচু্যুয়াল ট্রাস্ট ব্র্যাংক, এনসিসি ব্যাংক, এনআরবিসি ব্যাংক, ওয়ান ব্যাংক, প্রিমিয়ার ব্যাংক, প্রাইম ব্যাংক, পূবালী ব্যাংক, শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক, সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক, সাউথইস্ট ব্যাংক, স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক এবং উত্তরা ব্যাংক লিমিটেড।

এর মধ্যে ১৯টি ব্যাংক বোনাস ডিভিডেন্ড দিয়েছে এবং ২৩টি ব্যাংক নগদ ডিভিডেন্ড দিয়েছে। এছাড়া ১৭টি ব্যাংক বোনাস ও নগদ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এবি ব্যাংক : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ৫ শতাংশ বোনাস ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ এর মাধ্যমে কোম্পানিটির মূলধন বাড়বে ৩৯ কোটি ৮০ লাখ ১৮ হাজার ৪১৫ টাকা।

আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ১৫ শতাংশ নগদ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ এর মাধ্যমে কোম্পানিটির কাছে থেকে বিনিয়োগকারীরা নগদ ১৫৯ কোটি ৭৩ লাখ ৫৩ হাজার ২৭৮ টাকা পাবে। তবে বোনাস ডিভিডেন্ড না দেয়ায় কোম্পানিটির মূলধন বাড়বেনা।

ব্যাংক এশিয়া : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ১০ শতাংশ নগদ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ এর মাধ্যমে কোম্পানিটির কাছে থেকে বিনিয়োগকারীরা ইগদ ১১৬ কোটি ৫৯ লাখ ৬ হাজার ৮৬১টাকা পাবে। তবে বোনাস ডিভিডেন্ড না দেয়ায় কোম্পানিটির মূলধন বাড়বেনা।

ব্র্যাক ব্যাংক : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ১০ শতাংশ নগদ এবং ৫ শতাংশ বোনাস ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ ইগদ ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির কাছে থেকে বিনিয়োগকারীরা নগদ ১৩২ কোটি ৫৮ লাখ ৭৮ হাজার ৪৭৬ টাকা পাবে। বোনাস ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির মূলধন বাড়বে ৬৬ কোটি ২৯ লাখ ৩৯ হাজার ২৩৮ টাকা।

সিটি ব্যাংক : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ১৭.৫ শতাংশ নগদ এবং ৫ শতাংশ বোনাস ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ নগদ ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির কাছে থেকে বিনিয়োগকারীরা নগদ ১৫২ কোটি ৪৫ লাখ ৭৯ হাজার ৯৯২ টাকা পাবে। বোনাস ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির মূলধন বাড়বে ৫০ কোটি ৮১ লাখ ৯৩ হাজার ৩৩০ টাকা।

ঢাকা ব্যাংক : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ৬ শতাংশ নগদ এবং ৬ শতাংশ বোনাস ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ নগদ ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির কাছে থেকে বিনিয়োগকারীরা নগদ ৫৩ কোটি ৭৫ লাখ ২৩ হাজার ৪৪৬ টাকা পাবে। বোনাস ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির মূলধন বাড়বে ৫৩ কোটি ৭৫ লাখ ২৩ হাজার ৪৪৬ টাকা।

ডাচ্-বাংলা ব্যাংক : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ১৫ শতাংশ নগদ এবং ১৫ শতাংশ বোনাস ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ ইগদ ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির কাছে থেকে বিনিয়োগকারীরা ইগদ ৮২ কোটি ৫০ লাখ টাকা পাবে। বোনাস ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির মূলধন বাড়বে ৮২ কোটি ৫০ লাখ টাকা।

ইস্টার্ন ব্যাংক : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ১৭.৫০ শতাংশ নগদ এবং ১৭.৫০ শতাংশ বোনাস ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ ইগদ ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির কাছে থেকে বিনিয়োগকারীরা নগদ ১৪২ কোটি ৬ লাখ ৪৯ হাজার ২০৯ টাকা পাবে। বোনাস ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির মূলধন বাড়বে ১৪২ কোটি ৬ লাখ ৪৯ হাজার ২০৯ টাকা।

এক্সিম ব্যাংক : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ৭.৫০ শতাংশ নগদ এবং ২.৫০ শতাংশ বোনাস ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ ইগদ ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির কাছে থেকে বিনিয়োগকারীরা নগদ ১০৫ কোটি ৯১ লাখ ৮৮ হাজার ৩০১ টাকা পাবে। বোনাস ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির মূলধন বাড়বে ৩৫ কোটি ৩০ লাখ ৬২ হাজার ৭৬৭ টাকা।

ফার্স্ট সিকিউরিটিজ ইসলামী ব্যাংক : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ৫ শতাংশ নগদ এবং ৫ শতাংশ বোনাস ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ নগদ ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির কাছে থেকে বিনিয়োগকারীরা নগদ ৪৭ কোটি ৪৩ লাখ ৮০ হাজার ১০১ টাকা পাবে। বোনাস ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির মূলধন বাড়বে ৪৭ কোটি ৪৩ লাখ ৮০ হাজার ১০১ টাকা।

আইএফআইসি ব্যাংক : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ৫ শতাংশ বোনাস ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ এর মাধ্যমে কোম্পানিটির মূলধন বাড়বে ৮০ কোটি ৯৯ লাখ ৩৬ হাজার ৯৩৪ টাকা।

ইসলামী ব্যাংক : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ১০ শতাংশ নগদ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ এর মাধ্যমে কোম্পানিটির কাছে থেকে বিনিয়োগকারীরা নগদ ১৬০ কোটি ৯৯ লাখ ৯০ হাজার ৬৬৮
টাকা পাবে। তবে বোনাস ডিভিডেন্ড না দেয়ায় কোম্পানিটির মূলধন বাড়বেনা।

যমুনা ব্যাংক : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ১৭.৫০ শতাংশ নগদ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ এর মাধ্যমে কোম্পানিটির কাছে থেকে বিনিয়োগকারীরা নগদ ১৩১ কোটি ১১ লাখ ৪৪ হাজার ৮৮৭ টাকা পাবে। তবে বোনাস ডিভিডেন্ড না দেয়ায় কোম্পানিটির মূলধন বাড়বেনা।

মার্কেন্টাইল ব্যাংক : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ১০ শতাংশ নগদ এবং ৫ শতাংশ বোনাস ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ ইগদ ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির কাছে থেকে বিনিয়োগকারীরা ইগদ ১০৩ কোটি ৩২ লাখ ১৭ হাজার ২৮ টাকা পাবে। বোনাস ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির মূলধন বাড়বে ৫১ কোটি ৬৬ লাখ ৮ হাজার ৫১৪ টাকা।

মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ১০ শতাংশ বোনাস ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ এর মাধ্যমে কোম্পানিটির মূলধন বাড়বে ৭৩ কোটি ৮৬ লাখ ৩২ হাজার ৪১৮ টাকা।

এনসিসি ব্যাংক : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ৭.৫০ শতাংশ নগদ এবং ৭.৫০ শতাংশ বোনাস ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ নগদ ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির কাছে থেকে বিনিয়োগকারীরা নগদ ৭০ কোটি ৯৪ লাখ ৪৪ হাজার ৮৬০ টাকা পাবে। বোনাস ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির মূলধন বাড়বে ৭০ কোটি ৯৪ লাখ ৪৪ হাজার ৮৬০ টাকা।

এনআরবিসি ব্যাংক : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ৭.৫ শতাংশ নগদ এবং ৫ শতাংশ বোনাস ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ নগদ ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির কাছে থেকে বিনিয়োগকারীরা নগদ ৫২ কোটি ৬৮ লাখ ৮৭ হাজার ৭৪৮ টাকা পাবে। আর বোনাস ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির মূলধন বাড়বে ৩৫ কোটি ১২ লাখ ৫৮ হাজার ৪৯৯ টাকা।

ওয়ান ব্যাংক : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ৬ শতাংশ নগদ এবং ৫.৫ শতাংশ বোনাস ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ নগদ ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির কাছে থেকে বিনিয়োগকারীরা নগদ ৫৩ কোটি ১২ লাখ ৭ হাজার ৮৪৩ টাকা পাবে। বোনাস ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির মূলধন বাড়বে ৪৮ কোটি ৬৯ লাখ ৪০ হাজার ৫২২ টাকা।

প্রিমিয়ার ব্যাংক : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ১২.৫০ শতাংশ নগদ এবং ৭.৫০ শতাংশ বোনাস ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ নগদ ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির কাছে থেকে বিনিয়োগকারীরা নগদ ১২১ কোটি ২৮ লাখ ৭২ হাজার ৯৪০ টাকা পাবে। বোনাস ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির মূলধন বাড়বে ৭২ কোটি ৭৭ লাখ ২৩ হাজার ৭৬৪ টাকা।

প্রাইম ব্যাংক : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ১৫ শতাংশ নগদ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ এর মাধ্যমে কোম্পানিটির কাছে থেকে বিনিয়োগকারীরা নগদ ১৬৯ কোটি ৮৪ লাখ ২৫ হাজার ২১৬
টাকা পাবে। তবে বোনাস ডিভিডেন্ড না দেয়ায় কোম্পানিটির মূলধন বাড়বেনা।

পূবালী ব্যাংক : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ১২.৫ শতাংশ নগদ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ এর মাধ্যমে কোম্পানিটির কাছে থেকে বিনিয়োগকারীরা নগদ ১২৮ কোটি ৫৩ লাখ ৬৭ হাজার ৭৭৪ টাকা পাবে। তবে বোনাস ডিভিডেন্ড না দেয়ায় কোম্পানিটির মূলধন বাড়বেনা।

শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ৭ শতাংশ নগদ এবং ৫ শতাংশ বোনাস ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ নগদ ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির কাছে থেকে বিনিয়োগকারীরা নগদ ৬৮ কোটি ৬০ লাখ ৬৪ হাজার ৬৩৫ টাকা পাবে। বোনাস ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির মূলধন বাড়বে ৪৯ কোটি ৪৬ হাজার ১৬৮ টাকা।

সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ৫ শতাংশ নগদ এবং ৫ শতাংশ বোনাস ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ নগদ ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির কাছে থেকে বিনিয়োগকারীরা নগদ ৪৬ কোটি ৯০লাখ ৪ হাজার ২১২ টাকা পাবে। বোনাস ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির মূলধন বাড়বে ৪৬ কোটি ৯০লাখ ৪ হাজার ২১২ টাকা।

সাউথইস্ট ব্যাংক : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ১০ শতাংশ নগদ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ এর মাধ্যমে কোম্পানিটির কাছে থেকে বিনিয়োগকারীরা নগদ ১১৮ কোটি ৮৯ লাখ ৪০ হাজার ৫২২টাকা পাবে। তবে বোনাস ডিভিডেন্ড না দেয়ায় কোম্পানিটির মূলধন বাড়বেনা।

স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ২.৫ শতাংশ নগদ এবং ২.৫ শতাংশ বোনাস ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ নগদ ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির কাছে থেকে বিনিয়োগকারীরা নগদ ২৫ কোটি ১৪ লাখ ৯৭ হাজার ৬৯৭ টাকা পাবে। বোনাস ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির মূলধন বাড়বে ২৫ কোটি ১৪ লাখ ৯৭ হাজার ৬৯৭ টাকা।

উত্তরা ব্যাংক : ২০২০ অর্থবছরে ব্যাংকটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ১২.৫০ শতাংশ নগদ এবং ১২.৫০ শতাংশ বোনাস ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। অর্থাৎ নগদ ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির কাছে থেকে বিনিয়োগকারীরা নগদ ৬২ কোটি ৭৪ লাখ ২৫ হাজার ৯৮৭ টাকা পাবে। স্টক ডিভিডেন্ডের মাধ্যমে কোম্পানিটির মূলধন বাড়বে ৬২ কোটি ৭৪ লাখ ২৫ হাজার ৯৮৭ টাকা।

ওএস/আরপি

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here